Advertisement
  • মা | ঠে-ম | য় | দা | নে
  • ডিসেম্বর ২৩, ২০২৩

‌৩টি পেনাল্টি থেকে বঞ্চিত, ইস্টবেঙ্গলকে জিততে দিলেন না রেফারি

আরম্ভ ওয়েব ডেস্ক
‌৩টি পেনাল্টি থেকে বঞ্চিত, ইস্টবেঙ্গলকে জিততে দিলেন না রেফারি

আইএসএলে–র রেফারিদের বিরুদ্ধে বাংলার ফুটবলপ্রেমীরা যদি গর্জে ওঠেন অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না। একের পর এক ম্যাচে বাজে রেফারিংয়ের শিকার হচ্ছে কলকাতার দুই প্রধান। আগের ম্যাচে মুম্বই সিটি এফসি ম্যাচে রেফারি মোহনবাগানের বিরুদ্ধে একাধিক ভুল সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। শুক্রবার যুবভারতীতে রেফারি সেন্থিল নাথানের ভুল সিদ্ধান্তে ওডিশা এফসি–র বিরুদ্ধে দুর্দান্ত খেলেও জয় হাতছাড়া ইস্টবেঙ্গলের। দু–দুটি নিশ্চিত পেনাল্টি থেকে ইস্টবেঙ্গলকে বঞ্চিত করেন রেফারি সেন্থিল নাথান।
পরপর দুটি ম্যচ ড্র করে ওডিশা এফসি–র বিরুদ্ধে ঘরের মাঠে খেলতে নেমেছিল ইস্টবেঙ্গল। দুর্দান্ত ছন্দে থাকা ওডিশার বিরুদ্ধে জয় যে সহজ হবে না জানতেন লালহলুদ কোচ কার্লেস কুয়াদ্রাত। তাই ওডিশার বিরুদ্ধে এদিন অঙ্ক কষে খেলার চেষ্টা করেন। অল আউট আক্রমণে না ঝাঁপিয়ে প্রতি আক্রমণভিত্তিক খেলার দিকে নজর দেন। কার্লেস কুয়াদ্রাত জানতেন, ওডিশা দলের হৃদপিন্ড আহমেদ জাহু। মাঝমাঠ থেকে খেলা তৈরি করেন। তাই শৌভিক চক্রবর্তীকে পেছনে লাগিয়ে জাহুকে বোতলবন্দী করে দেন।
যদিও দারুণভাবেই শুরু করেছিল ওডিশা। ম্যাচের ৯ মিনিটে লালচুংনুঙ্গার কাছ থেকে বল ছিনিয়ে নিয়ে ইস্টবেঙ্গল বক্সে ঢুকে পড়েছিলেন ইসাক ভানারুয়া। কিন্তু সুবিধাজনক জায়গা থেকেও ভালভাবে শট নিতে পারেননি। এরপরই খেলায় ফেরে ইস্টবেঙ্গল। রক্ষণে দুর্দান্ত নেতৃত্ব দেন হিজাজি মাহের। মাঠমাঠের নিয়ন্ত্রন তুলে নেন শৌভিক চক্রবর্তী। ১৬ মিনিটে গোল করার সুযোগ এসেছিল ইস্টবেঙ্গলের সামনে। নিশু কুমারের লম্বা পাস থেকে বক্সের মধ্যে বল পেয়েও গোলে রাখতে পারেননি ক্লেইটন সিলভা। ২৩ মিনিটে ওডিশা গোলকিপার অমরিন্দার সিংকে একা পেয়েও তাঁর হাতে বল তুলে দেন নন্দকুমার। ২৭ মিনিটে নন্দকুমারের আরও একটা প্রয়াস কোনও রকমে পা দিয়ে আটকে নিশ্চিত গোল বাঁচান অমরিন্দার। তবে ওডিশার রয় কৃষ্ণাও প্রথমার্ধে দু–দুবার গোলের সুযোগ পেয়েছিলেন। কাজে লাগাতে পারেননি।
দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই মহেশ সিংয়ের দুর্দান্ত শট বক্সের মধ্যে হাতে লাগে ওডিশার লেনি রডরিগেজের। ইস্টবেঙ্গল ফুটবলাররা পেনাল্টির আবেদন করলেও রেফারি কর্নার। দেন। রেফারির ভুল সিদ্ধান্তে হতদ্যোম না হয়ে আরও মরিয়া হয়ে ওঠে ইস্টবেঙ্গল। কিন্তু গোল তুলে নিতে পারেনি। ৯০ মিনিটে আবার ইস্টবেঙ্গলকে নিশ্চিত পেনাল্টি থেকে বঞ্চিত করেন রেফারি। সিভেরিয়োর শট অময় রানাওয়াডের মাথা ছুয়ে মোর্তাদা ফলের হাতে লাগে। এবারও রেফারি পেনাল্টি দেননি। ম্যাচের ইনজুরি সময়ে জেরি লালরিনজুয়ালা বক্সের মধ্যে টেনে ফেলে দেন পিভি বিষ্ণুকে। তাসত্ত্বেও রেফারি পেনাল্টি দেননি। রেফারি সেন্থিল নাথানের বদান্যতায় পয়েন্ট নিয়ে ঘরে ফিরল ওডিশা।


  • Tags:

Read by:

❤ Support Us
Advertisement
homepage block Mainul Hassan and Laxman Seth
Advertisement
homepage block Mainul Hassan and Laxman Seth
Advertisement
শিবভোলার দেশ শিবখোলা স | ফ | র | না | মা

শিবভোলার দেশ শিবখোলা

শিবখোলা পৌঁছলে শিলিগুড়ির অত কাছের কোন জায়গা বলে মনে হয় না।যেন অন্তবিহীন দূরত্ব পেরিয়ে একান্ত রেহাই পাবার পরিসর মিলে গেছে।

সৌরেনি আর তার সৌন্দর্যের সই টিংলিং চূড়া স | ফ | র | না | মা

সৌরেনি আর তার সৌন্দর্যের সই টিংলিং চূড়া

সৌরেনির উঁচু শিখর থেকে এক দিকে কার্শিয়াং আর উত্তরবঙ্গের সমতল দেখা যায়। অন্য প্রান্তে মাথা তুলে থাকে নেপালের শৈলমালা, বিশেষ করে অন্তুদারার পরিচিত চূড়া দেখা যায়।

মিরিক,পাইনের লিরিকাল সুমেন্দু সফরনামা
error: Content is protected !!