Advertisement
  • এই মুহূর্তে দে । শ
  • সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২৩

অভিষেককে ৩ অক্টোবর ইডির সমন, দিল্লিতে ঘেরাওয়ের কর্মসূচি থাকায় ওই দিন ইডির হাজিরায় যাবেন কী তৃণমূল নেতা ?

আরম্ভ ওয়েব ডেস্ক
অভিষেককে ৩ অক্টোবর ইডির সমন, দিল্লিতে ঘেরাওয়ের কর্মসূচি থাকায় ওই দিন ইডির হাজিরায় যাবেন কী তৃণমূল নেতা ?

তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে ফের নিয়োগ দুর্নিটা মামলায় ইডি-র সমন। এ বারও তৃণমূল সাংসদের পূর্বনির্ধারিত রাজনৈতিক কর্মসূচির সময়েই তাঁকে সমন পাঠাল ইডি। আগামী ২ এবং ৩ অক্টোবর বাংলার পাওনা আদায়ের দাবিতে দিল্লিতে ঘেরাও কর্মসূচির ঘোষণা করেছে রাজ্য়ের শাসক দল তৃণমূল। অভিষেকেরও দিল্লিতে থাকার কথা সেই দু’দিন। ইডি তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদককে তলব করেছে ঠিক ওই সময়েই। আগামী ৩ অক্টোবর সকাল সাড়ে ১০টার সময়ে সিজিও কমপ্লেক্সে হাজির হতে বলা হয়েছে অভিষেককে। অভিষেক নিজেই তাঁর X হ্যান্ডলে এই খবর জানিয়েছেন। সেই সঙ্গে নাম না করে আক্রমণও করেছেন কেন্দ্রের বিজেপি সরকারকে। অভিষেক লিখেছেন, এ বার বোঝা যাচ্ছে কারা আসলে ভয় পেয়েছে।

তৃণমূল সূত্রে জানা যাচ্ছে অভিষেক ৩ অক্টোবর ইডির হাজিরায় সিজিও কমপ্লেক্সে যাবেন না। তিনি দলীয় কর্মসূচিতে দিল্লিতেই যাবেন। ওই দিনই যন্তরমন্তরে তৃণমূলের প্রধান কর্মসূচি। অভিষেক ইডির কাছে ৩ অক্টোবর যেতে না পাড়ার কথা জানিয়ে অন্য দিন তাঁকে ডাকার কথা জানাবেন। কেননা তৃণমূলের দিল্লির কর্মসূচি পূর্বঘোষিত।

এদিকে এই প্রসঙ্গে সিপিএম সাংসদ বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য বলেন, সৎ নাগরিকের মতো তদন্তে সহযোগিতা না করে আদালতে গিয়ে তিনি হাজির হচ্ছেন। দুর্নীতি করার সময় কি দিনক্ষণ দেখে করেছিলেন? ইডিকে ৩ তারিখই অভিষেককে হাজিরায় থাকতে বাধ্য করতে হবে। এর থেকে বোঝা যাচ্ছে তৃণমূল কোনও দল নয়, একটা পরিবারের ওপর নির্ভরশীল। তাই ওই পরিবারের একজনকে ডাকলেই আন্দোলন বন্ধ হয়ে যায়।

এদিকে তৃণমূল সাংসদ শান্তনু সেন এই প্রসঙ্গে বলেন, অভিষেক ফোবিয়া কি ভাবে বিজেপিকে গ্রাস করেছে এটা তারই প্রমাণ। এসব বিজেপি যত করবে ততই মমতা বন্দ্যেপাধ্যায়ের, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রতি মানুষের সমর্থন বাড়বে।

প্রসঙ্গত গত ২৫ সেপ্টেম্বর বিচারপতি অমৃতা সিনহার এজলাসে বিচারপতি অমৃতা সিনহা অভিষেকে মামলার তদন্তের গতি নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। ইডি আদালতে অভিষেকের সম্পত্তির যে তথ্য দেয় তাতে সন্তুষ্ট হননি বিচারপতি অমৃতা সিনহা। আগামীকাল শুক্রবার অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের মামলার আবার শুনানি আছে। তাই কী ইডি আবার আদালতের ভর্ৎসনা এড়াতে অভিষেককে তলব করল? এই প্রশ্নও উঠছে।

এর আগে বিরোধী জোটের সমন্বয় কমিটির বৈঠকের দিন, ১৩ সেপ্টেম্বর ইডি-র তরফে ডেকে পাঠানো হয়েছিল অভিষেককে। কমিটির সদস্য হিসাবে সেই বৈঠকে উপস্থিত থাকার কথা ছিল অভিষেকের। কিন্তু তিনি শেষ পর্যন্ত সেই বৈঠকে উপস্থিত থাকতে পারেননি। বৈঠকে না গিয়ে ইডির সমনে সাড়া দিয়ে সল্টলেকে ইডির দফতরে হাজিরা দিয়েছিলেন অভিষেক। সাড়ে ৯ ঘণ্টা জেরার পর বেরিয়ে অভিষেক বলেন, “আবারও বলছি, এই জেরার ফলও বিরাট একটা শূন্য। এর পর আবারও ডাকলে, যতবার ডাকবে ততবার জেরার ফল মাইনাস শূন্য হতে থাকবে।”

এদিকে এ বারও দিল্লিতে তৃণমূলের ঘেরাও কর্মসূচির সময়েই ডেকে পাঠানো হল তাঁকে। বৃহস্পতিবার সে কথা নিজেই তাঁর X হ্যান্ডেলে  জানিয়েছেন অভিষেক। বার বার তাঁর রাজনৈতিক কর্মসূচির সময়েই তাঁকে নোটিস পাঠানো হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেছেন তিনি।

এর আগে অভিষেকের যখন নবজোয়ার কর্মসূচি চলছে সেই কর্মসূচির মধ্যেও অভিষেককে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা ডেকে পাঠিয়েছিল। অভিষেক সেবারও হাজিরা দিতে কর্মসূচি ফেলে জেলা থেকে কলকাতায় চলে এসেছিলেন।

এবারও ১০০দিনের কাজের টাকা আদায়ের দাবিতে ২ ও ৩ অক্টোবর সাড়ে ১০টায় অভিষেককে সিজিও কমপ্লেক্স-এ ইডি হাজিরায় ডেকে পাঠিয়েছিল। অভিষেকের আইনজীবী এর আগেও আদালতে বলেছিলেন, তাঁর কর্মসূচি যেদিন থাকে সেদিনই তাঁকে ইডি হাজিরায় ডাকেন। তবে ইডি এর আগে অভিষেকের সম্পত্তির হিসেবে দিতে গিয়ে তাঁর ব্যাঙ্ক-এর কোনও হিসেবে খাতের তথ্য দেয়নি আদালতে, শুধুমাত্রই তিনটি বীমা পলিসির তথ্য দিয়েছে। এই নিয়ে আদালতে শুক্রবার ইডি ফের ভর্ৎসিত হওয়ার ভয়েই কী অভিষেককে তলব করল?


  • Tags:
❤ Support Us
error: Content is protected !!