Advertisement
  • দে । শ প্রচ্ছদ রচনা
  • অক্টোবর ১০, ২০২৩

মিয়ানমারের শরণার্থী শিবিরে সেনাবাহিনীর হামলায় নারী ও শিশুসহ ২৯ জন নিহত

আরম্ভ ওয়েব ডেস্ক
মিয়ানমারের শরণার্থী শিবিরে সেনাবাহিনীর হামলায় নারী ও শিশুসহ ২৯ জন নিহত

চীন সীমান্তের কাছে মিয়ানমারের একটি শরণার্থী শিবিরে সেনাবাহিনীর হামলায় নারী ও শিশুসহ অন্তত ২৯ জন নিহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। সামরিক বাহিনী ফের দেশটির ক্ষমতা নেওয়ার পরে থেকে এই ঘটনা সাধারণের ওপর চালানো অন্যতম প্রাণঘাতী হামলা। মঙ্গলবার গণমাধ্যম ও নিজস্ব কিছু সূত্র উল্লেখ করে এই হামলার খবর দিয়েছে সংবাদ সংস্থা রয়টার্স।

সোমবার মধ্যরাতের সামান্য আগে মিয়ানমারের কাচিন রাজ্যে গোলাবর্ষণের এই ঘটনা ঘটে। ওই সময় সীমান্ত শহর লাইজায় কাচিন ইন্ডিপেন্ডেন্ট আর্মির বা কেআইএ একটি ঘাঁটি থেকে প্রায় ৫ কিলোমিটার দূরে শরণার্থী শিবিরটিতে গোলা এসে পড়ে। কেআইএ বহু বছর ধরে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে লড়াই করে আসছে।

কাচিনের সংবাদ মাধ্যমগুলো এই হামলার জন্য মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীকে দায়ী করে বলেছে, এ হামলায় ৩০ জন নিহত হয়েছে। কাচিন পিস নেটওয়ার্ক সিভিল সোসাইটি গ্রুপের স্থানীয় আন্দোলনকারী খোন জা রয়টার্সকে জানিয়েছেন, ঘটনার পর তিনি স্থানীয় হাসপাতালে গিয়েছিলেন, তাকে জানানো হয়েছে ২৯ জন নিহত ও ৫৯ জন আহত হয়েছেন।

খোন জা জানিয়েছেন, “বোমাটি খুবই শক্তিশালী ছিল। যে গ্রামে বোমাটি পড়েছে সেই গ্রামটি আসলে একটি শরণার্থী শিবির, শরণার্থী শিবিরটি   পুরোপুরি ধ্বংস হয়ে গেছে।”

২০২১ সালের ফেব্রুয়ারিতে এক অভ্যুত্থানে সামরিক বাহিনী ক্ষমতা দখল করার পর থেকে মিয়ানমারজুড়ে ব্যাপক অস্থিরতা চলছে। দেশটির সংখ্যালঘু জাতিগুলোর বিদ্রোহী সশস্ত্র বাহিনীগুলো ও দেশটির বিরোধীদলের নেতৃত্বে গড়ে ওঠা প্রতিরোধ আন্দোলন সামরিক বাহিনীকে ক্ষমতা থেকে হটানোর চেষ্টায় লড়াই করে চলছে। এই লড়াইয়ে বহু মানুষ হতাহত হওয়ার পাশাপাশি ১০ লাখেরও বেশি মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছে বলে জাতিসংঘ জানিয়েছে।


  • Tags:
❤ Support Us
error: Content is protected !!