Advertisement
  • এই মুহূর্তে দে । শ
  • নভেম্বর ১৫, ২০২৩

মোদির সমালোচনা করে কমিশনের নোটিশ পেলেন কেজরিওয়াল, প্রিয়াঙ্কা

আরম্ভ ওয়েব ডেস্ক
মোদির সমালোচনা করে কমিশনের নোটিশ পেলেন কেজরিওয়াল, প্রিয়াঙ্কা

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে ভুল ও অপমানজনক মন্তব্য করেছেন আপ নেতা অরবিন্দ কেজরিওয়াল এবং কংগ্রেস নেত্রী প্রয়াঙ্কা গান্ধি। তাই তাঁদের কাছে কারণ দর্শানোর নোটিশ পাঠাল জাতীয় নির্বাচন কমিশন। কেজরিওয়াল ও প্রিয়াঙ্কার বিরুদ্ধে বিজেপির তরফে জাতীয় নির্বাচন কমিশনে অভিযোগনজানান হয়েছিল। তার পরই জাতীয় নির্বাচন কমিশন এই দুই নেতানেত্রীকে শো-কজ এর নেটিশ পাঠাল।

আপ দলের তরফে সোশ্যাল মিডিয়ার এক্স হ্যান্ডেলে দুটো পোস্ট নিয়ে বিজেপি আপত্তি তুলেছিল। জাতীয় নির্বাচন কমিশনে বিজেপি অভিযোগ করেছিল, আপ-এর তরফে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে আপত্তিকর ও অপমানজনক মন্তব্য পোস্ট করা হয়েছে। ওই পোস্টে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও শিল্পপতি গৌতম আদানিকে নিয়ে কিছু আপত্তিকর পোস্ট আপ এর পক্ষে করা হয়েছিল বলে কমিশনে নালিশ জানায় বিজেপি। এর পরই দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে নোটিশ পাঠিয়েছে জাতীয় নির্বাচন কমিশন। নোটিশে প্রাথমিক ভাবে বলা হয়েছে, আপ-এর ওই পোস্টগুলো নির্বাচনী বিধি ভঙ্গ করেছে।

একই সঙ্গে মঙ্গলবারই কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধিকেও নোটিশ পাঠিয়েছে জাতীয় নির্বাচন কমিশন। বিজেপির অভিযোগ, সম্প্রতি মধ্যপ্রদেশের সানওয়ের একটি বিধানসভা কেন্দ্রে নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে প্রিয়াঙ্কা গান্ধি নরেন্দ্র মোদি প্রসঙ্গে মিথ্যা ও অপমানজনক মন্তব্যপুষ্ট ভাষণ দিয়েছেন। এই কারণেই জাতীয় নির্বাচন কমিশন প্রিয়াঙ্কাকে নোটিশ দিয়েছে এবং আগামী ১৬ নভেম্বর বিকেল ৪টার মধ্যে নোটিশের জবাব দিতে বলা হয়েছে। প্রসঙ্গত, নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে প্রিয়াঙ্কা দাবি করেছিলেন, নরেন্দ্র মোদির সরকার রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থাগুলিকে বেসরকারি হাতে তুলে দিয়েছে, এই বক্তব্যই বিজেপির ভালো লাগেনি, তাই কমিশনে অভিযোগ করতেই কমিশন প্রিয়াঙ্কাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে।
কমিশন নোটিশে অরবিন্দ কেজরিওয়াল ও প্রিয়াঙ্কা গান্ধিকে জানিয়েছে, নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে এই নোটিশের উত্তর নোটিশ প্রাপকরা না দিলে কমিশন ধরে নেবে এই প্রসঙ্গে তাঁদের কোনও বক্তব্য নেই। তখন জাতীয় নির্বাচন কমিশন নিয়মানুযায়ী এই দুই নেতানেত্রীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে।

এই নোটিশ প্রসঙ্গে বিরোধীদের বক্তব্য, নিবাচনী প্রক্রিয়া চালু হয়ে যাওয়ার পর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আগামী পাঁচ বছর দেশের ৮০ কোটি মানুষকে রেশন দেওয়ার কথা ঘোষণা করেও নির্বাচনী বিধি ভঙ্গ করেছেন, এই নিয়ে কমিচনে নালিশ জানান হয়েছে, কই কমিশন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে তো কোনও ব্যবস্থা নিল না, এখানেও কি পক্ষপাতিত্ব ?


  • Tags:
❤ Support Us
error: Content is protected !!