Advertisement
  • এই মুহূর্তে
  • এপ্রিল ১১, ২০২২

অনলাইনে বিজ্ঞাপনের গাছে উঠছে বাঘের দাঁত! সোশ্যাল মিডিয়ায় তুমুল হইচই ।

বিষয়টি জানাজানি হতেই বিজ্ঞাপনটি সরিয়ে নেওয়া হয় ।

আরম্ভ ওয়েব ডেস্ক
অনলাইনে বিজ্ঞাপনের গাছে উঠছে বাঘের দাঁত! সোশ্যাল মিডিয়ায় তুমুল হইচই ।

অনলাইনে এলিফ্যান্ট থেকে আলপিন সবই পাওয়া যায়। কিন্তু বাঘের দাঁত? তাও পাওয়া যাচ্ছে,  বিজ্ঞাপনটি  দেখে চক্ষু চড়কগাছ অনেকের। বিষয়টি নিয়ে হৈ চৈ শুরু হতেই নড়েচনে বসে প্রশাসন। তদন্ত শুরু হতেই সোশ্যাল মিডিয়ার দেওয়াল থেকে  তুলে নেওয়া হয় বিজ্ঞাপনটিও। জানুয়ারি মাসের প্রথম থেকেই বেশ কয়েকদিন যাবৎ বিজ্ঞাপনটি দেখা যাচ্ছিল হুগলির একটি গ্রুপে। একটি বাঘের দাঁতের ছবি দিয়ে বলা হয়  এটি বিক্রি হবে। হুগলির এইচ ডি এন্টারপ্রাইজ নামক গ্রুপ  প্রায় ৪ লক্ষ টাকার কাছাকাছি দাম ধার্য হয় দাঁতটির জন্য । বিষয়টি জানাজানি হতেই বিজ্ঞাপনটি সরিয়ে নেওয়া হয় ওই নির্দিষ্ট গ্রুপ থেকে। ইতিমধ্যে যে গ্রুপ থেকে এরকম বিজ্ঞাপন দেওয়া হয়েছিল সেই গ্রুপের খোঁজ চালাচ্ছে বন্যপ্রাণ পাচার রোধ সংস্থার কর্মীরা ।

 বিজ্ঞাপনদাতা দাবি করেন, এটি তাঁর ঠাকুরদার সময়কার বাঘের দাঁত।

বিজ্ঞাপনে দাবি করা হয়, হুগলির তারকেশ্বরের স্টেশনের কাছে এক ব্যক্তির বাড়িতে রাখা আছে রয়্যাল বেঙ্গল টাইগারের সামনের লম্বা দাঁত। অসমের একজন ইতিমধ্যেই প্রায় ৪ লক্ষ টাকার কাছাকাছি দাম ধার্য করেন । বিজ্ঞাপনদাতা দাবি করেন, এটি তাঁর ঠাকুরদার সময়কার বাঘের দাঁত। তাঁদের বাড়িতে রাখা ছিল। ছবি-সহ সেটি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্টও করেন তিনি। ফেসবুকে দেখার পর বেশ কয়েকজন এ বিষয়ে উৎসাহও প্রকাশ করেন।

এ বিষয়ে রাজ্যের ওয়ার্ল্ড লাইফ ক্রাইমের ডেপুটি ফিল্ড ডিরেক্টর ওম প্রকাশ বলেন, ‘আমরা এর আগেও অনলাইনে এভাবে বন্যপ্রাণীর দেহ বিক্রি করার বিজ্ঞাপন দেওয়ার অভিযোগ পেয়েছি। বেশ কয়েকজনকে গ্রেপ্তারও করেছি। যে সংস্থার থেকে বিজ্ঞাপন দেওয়া হয়েছে সেটির ব্যাপারে খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে। অনলাইনে এভাবে বন্যপ্রাণীর দেহাংশ বিক্রি বিজ্ঞাপন দেওয়া আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ।’


❤ Support Us
error: Content is protected !!