Advertisement
  • এই মুহূর্তে দে । শ
  • ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২৩

উপাচার্য বিদ্যুতকে হাইকোর্টের ‘শক’। লাখ টাকা জরিমানা দিতেই হবে।

জল্পনা, রেহাই নেই বিদ্যুতের আরো বড়ো সুবিচারের অপেক্ষায় রবীন্দ্র প্রেমিক আশ্রমিকরা।

আরম্ভ ওয়েব ডেস্ক
উপাচার্য বিদ্যুতকে হাইকোর্টের ‘শক’। লাখ টাকা জরিমানা দিতেই হবে।

বিশ্বভারতীর উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তীকে লাখ টাকা জরিমানা আদায়ের হুকুম বহাল রাখল হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ। উপাচার্য বিদ্যুৎ গোড়া থেকেই বিতর্কের কেন্দ্রে। একের পর এক স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগে নিন্দিত, আর বিদ্ধ। অমর্ত্যের মতো সর্বময় প্রজ্ঞাকে হেয় করতে পিছপা হননি। অনভিপ্রেত তাঁর এই ভূমিকায় ক্ষুব্ধ আশ্রমিক, ছাত্র-অধ্যাপক সকলেই। অভিযোগ, তাঁর স্বেচ্ছাচারিতায় রবীন্দ্র ভাবনার মুক্ত শিক্ষাঙ্গন আজ যেন রুদ্ধ কারাগার। আদর্শ বহিষ্কৃত। অবরুদ্ধ ভেতরের প্রকৃতি। বিশ্বভারতী বিদ্যুৎ ভারতী হয়ে উঠছে। প্রায় শক লাগছে ছাত্র শিক্ষকের অস্তিত্ব আর চিন্তায়। ২০২১ সালের ঘটনা, একজন সহকারী অধ্যাপককে নিজের ‘শিশু তদারকির ছুটি’ মঞ্জুর করেছিলেন অধ্যাপক দেবতোষ সিনহা। নিয়ম বজায় রেখে। উপাচার্যের আসন থেকেই বিদ্যুৎ বাবু অধ্যাপক সিনহার কৈফিয়ত তলব করেন, কেন ওই অধ্যাপকের ছুটি মঞ্জুর করা হয়েছিল? দেবতোষ সিনহা আদালতের দ্বারস্থ হলে বিচারপতি কৌশিক রুদ্র নির্দেশ দেন, উপাচার্যের চিঠি বাতিল করতে হবে এবং বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে ১ লাখ টাকা জরিমানা দিতে হবে। অনাদায়ে তা মেটাতে হবে খোদ উপাচার্যকে। সোমবার কলকাতা হাইকোর্টে জবরদস্ত চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হতে হল বিদ্যুৎ চক্রবর্তীকে। ইতিপূর্বে তাঁকে লাখ টাকা জরিমানা আদায়ের নির্দেশ দিয়েছিল সিঙ্গল বেঞ্চ।
নির্দেশটি বহাল রাখল বিচারপতি সুব্রত তালুকদারের নেতৃত্বাধীন একাধিক বিচারপতির বেঞ্চ।

 


  • Tags:
❤ Support Us
error: Content is protected !!