Advertisement
  • প্রচ্ছদ রচনা
  • মার্চ ৩০, ২০২২

সংসদে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারালেন ইমরান খান, আজই প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে ইস্তফা ?

আরম্ভ ওয়েব ডেস্ক
সংসদে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারালেন ইমরান খান, আজই প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে ইস্তফা ?

সংসদে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারালেন ইমরান খান । এ যাত্রায় বোধহয় আর গদি বাঁচানো সম্ভব নয় তাঁর পক্ষে। যতই বিদেশি অর্থে সরকার বদলের ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তুলুক না কেনো প্রাক্তন পাক ক্রিকেটার, আপাতত অনাস্থা প্রস্তাবের যাঁতাকল থেকে বেরনোর পথ ক্রমেই জটিল হয়ে উঠছে । জানা গেছে, মঙ্গলবার রাতে, ইমরানের দলের প্রধান জোটসঙ্গী মুত্তাহিদা কউমি মুভমেন্ট পাকিস্তান তথা এমকিউএম-পি হাত মিলিয়েছে বিরোধী দল পাকিস্তান পিপলস পার্টির সঙ্গে। ফলে রাতারাতি আরও বড়ও সংকটের সম্মুখীন হল ইমরানের দল তেহরিক-ই-ইনসাফ।

ওয়াকিবহাল মহলের মতে, এর ফলে ইমরানের পক্ষে ৩ এপ্রিলের আস্থা ভোটে জেতা প্রায় অসম্ভব হয়ে দাঁড়াল। কেননা এমকিউএম-পি পিপিপির সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধায় বিরোধীদের পাকিস্তানের জাতীয় সংসদের সদস্যসংখ্যা দাড়াল ১৭৭। ইমরান প্রশাসনের সদস্যদের সংখ্যা কমে হল ১৬৪। ৩৪২ সদস্যের জাতীয় সংসদে সরকার গড়ার ‘ম্যাজিক ফিগার’ ১৭২। যা থেকে অনেকটাই দূরে ইমরানের দল। প্রসঙ্গত, সরকার গড়ার সময় ইমরান সরকারের সদস্য ছিল ১৭৯। সেই সংখ্যাই কমে ১৬৪ হয়ে যাওয়ার ফলে বিপাকে ইমরান।

এদিকে এরই মধ্যে ইসলামাবাদের প্যারেড ময়দানে গণ সমাবেশের ডাক দিয়েছিল পিটিআই । সেখানে লক্ষাধিক মানুষের সামনে ইমরান অভিযোগ করেন, বাইরে থেকে পাকিস্তানের বিদেশ নীতিকে প্রভাবিত করার চেষ্টা চলছে। ইমরান বলেন, ‘বেশ কয়েক মাস ধরেই এটা চলছে। কে এই লোকগুলোকে একজোট করছে, তা আমরা জানি, কিন্তু সময় বদলেছে। এটা জুলফিকার আলি ভুট্টোর আমল নয়।’ পাক কূনীতিকদের বক্তব্য, এমন অভিযোগে কাজ হবে না। এবার গদি ছাড়তেই হবে ইমরানকে ।

পাক সংসদে ইমরানের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব আনেন বিরোধীরা। পাক প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে অনস্থা প্রস্তাব পেশে নেতৃত্ব দেন পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের ভাই শাহবাজ শরিফ । তখন থেকেই শুরু হয় জল্পনা। আগামী সাতদিনের মধ্যেই পদত্যাগ করতে পারেন ইমরান। নয়া পাক প্রধানমন্ত্রী হতে পারেন পাকিস্তান মুসলিম লিগ (নওয়াজ)-এর নেতা তথা নওয়াজের ভাই শাহবাজই। এদিকে ইমরান ঘনিষ্ঠ পাক পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী উসমান বুজদারের বিরুদ্ধেও অনাস্থা এনেছে বিরোধীরা। সব মিলিয়ে ঘরে-বাইরে কোণঠাসা ইমরান। মঙ্গলবার রাতের ঘটনার পরে সেই চাপ আরও বাড়ল। যা কেটে বেরিয়ে আসা অসম্ভব বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল। এমনও শোনা যাচ্ছে, সম্ভবত আজই সংসদের বাইরেই প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে ইস্তফা দিতে পারেন ইমরান খান৷ মঙ্গলবার নিজের দলের সাংসদদের আস্থা ভোট থেকে বিরত থাকা নয়তো ভোটাভুটির দিন সংসদে না যাওয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছিলেন ইমরান খান৷

উল্লেখ্য পাকিস্তানের ইতিহাসে এখনও পর্যন্ত কোনও প্রধানমন্ত্রীকে আস্থা ভোটে হেরে গিয়ে পদ হারাতে হয়নি৷ ইমরানকে ধরলে এই নিয়ে তৃতীয়বার কোনও পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রী আস্থা ভোটের মুখোমুখি হলেন৷ আবার এটাও ঠিক, পাকিস্তানের কোনও প্রধানমন্ত্রীই এখনও পর্যন্ত নিজেদের পাঁচ বছরের মেয়াদকাল সম্পূর্ণ করতে পারেননি৷
আগামী ৩ এপ্রিল পাকিস্তানের সংসদে আস্থা ভোট হওয়ার কথা৷ইমরানের দলের অন্তত ২০ জন সাংসদ তাঁর বিপক্ষে চলে গিয়েছেন৷ মুখ ফিরিয়েছে জোট সঙ্গীরাও৷ সেই কারণেই আস্থা ভোটে ইমরানের হার কার্যত অবধারিত৷


  • Tags:
❤ Support Us
error: Content is protected !!