Advertisement
  • এই মুহূর্তে ন | ন্দ | ন | চ | ত্ব | র
  • নভেম্বর ১৫, ২০২৩

এবার চাকদা নাট্যজনের “ব্যারিকেড” নাটক বন্ধ করল নবদ্বীপ পুরসভা

আরম্ভ ওয়েব ডেস্ক
এবার চাকদা নাট্যজনের “ব্যারিকেড” নাটক বন্ধ করল নবদ্বীপ পুরসভা

চাকদা নাট্যজনের নাটক “ব্যারিকেড”  নাটকটি বন্ধ করে দিল তৃণমূল শাসিত নবদ্বীপ পুরসভা। ২৩ জানুয়ারী নবদ্বীপ রবীন্দ্র ভবনে উৎপল দত্ত রচিত ও নাট্যকার দেবেশ চট্টোপাধ্যায়ের নির্দেশিত “ব্যারিকেড” নাটকটি মঞ্চস্থ হওয়ার কথা ছিল। নবদ্বীপ “সায়ক” নাট্যদলের আহ্বানে এই নাটক হওয়ার কথা ছিল। এর আগে কল্যাণীর সরকারি ঋত্বিক প্রেখ্যাগৃহে চাকদা নাট্যজনের চারদিনের বুকিং বাতিল করে দেয় কল্যাণী পুরসভা। ওই দিনই সংগ্রামী যৌথ মঞ্চে “জগাখিচুড়ি” নামের একটি নাটক মঞ্চস্থ করার পর কল্যাণী পুরসভা চাকদা নাট্যজনের চারদিনের ঋত্বিক প্রেক্ষাগৃহের বুকিং বাতিল করে দেওয়া হয়। সেইদিন সরকারি এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ করেছিলেন নাট্যকার দেবেশ চট্টোপাধ্যায়, কৌশিক সেন। এবার আবারও কল্যাণী নাট্যজনের “ব্যারিকেড” নাটকটির অভিনয় বন্ধ করে দিল নবদ্বীপ পুরসভা। এই নবদ্বীপ পুরসভার রবীন্দ্র ভবনে এই নাটক মঞ্চস্থ করা যাবে না বলে পুরসভার তরফে চিঠি দেওয়া হয়েছে চাকদা নাট্যজনকে।

চাকদা নাট্যজনের তরফে সুমন পাল মঙ্গলবার তাঁর ফেসবুক-এ পুরো ঘটনাটি তুলে ধরেন। তাতে তিনি লিখেছেন, “আবার বন্ধ করে দেওয়া হল উৎপল দত্ত রচিত, দেবেশ চট্টোপাধ্যায় নির্দেশিত, চাকদহ নাট্যজন প্রযোজিত “ব্যারিকেড” এর অভিনয়। আগামী ২৩ শে জানুয়ারি ব্যারিকেড এর অভিনয় হওয়ার কথা ছিল নবদ্বীপ রবীন্দ্রভবনে, নবদ্বীপ সায়কের আমন্ত্রণে। নবদ্বীপ পৌরসভা  আজ দুপুরে  উদ্যোক্তাদের জানিয়ে দেয়, যে ব্যারিকেড নাটকটি করা যাবে না। এও জানানো হয়, অন্য নাটক হতে পারে কিন্তু ব্যারিকেড করা যাবে না। অথচ, উৎপল দত্তের আরো বেশ কয়েকটি নাটক এই বঙ্গে নিয়মিত অভিনয় হচ্ছে। তাহলে ব্যারিকেড বন্ধ করার কারণ কি রাজনৈতিক না অন্য কিছু? আমরা বুঝতে পারছি না।
এই প্রশ্ন রাখছি আমাদের থিয়েটার প্রেমী মানুষদের কাছে। আমাদের মতন একটি দলের কাছে এই আঘাত আমাদের চলার পথে এক ভয়ংকর পরিনতি ডেকে নিয়ে আসছে। কিন্তু আমরা কোনভাবেই “ব্যারিকেড”এর  মতন নাটক বন্ধ করতে রাজী নই। আমাদের অন্যান্য প্রযোজনার পাশাপাশি ব্যারিকেড নাটকটির অভিনয় করে যেতে চাই। আমাদের বাংলা থিয়েটারের যে প্রতিবাদী সত্ত্বার জন্ম দিয়েছিল এইসব থিয়েটার তাকে বন্ধ করা উচিত? চাকদহ নাট্যজনের পক্ষ থেকে আপামর মানুষের কাছে আমাদের এই প্রশ্ন। আশাকরি আপনারা আমাদের সঠিক পথ দেখিয়ে দেবেন।”

এদিকে এই ঘটনায় এখনও তৃণমূল পরিচালিত নবদ্বীপ পুরসভার পক্ষে কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। নাট্যকর ও ব্যারিকেড নাটকের পরিচালক দেবেশ চট্টোপাধ্যায় বলেন, “নবদ্বীপ পুরসভার প্রধানের মনে হয়েছে এই নাটকটি লাল নাটক, তাই তিনি বন্ধ করে দিয়েছেন। এর আগেও চাকদা নাট্যজনের চারদিনের জন্য ভাড়া নেওয়া ঋত্বিক প্রেখ্যাগৃহের বুকিং বাতিল করে দিয়েছিল কল্যাণী পুরসভা। এর আগে সংগ্রামী যৌথ মঞ্চে নাটক করেছিল চাকদা নাট্যজনের নাট্যকর্মীরা।”

এই প্রসঙ্গে অভিনেতা কৌশিক সেন বলেন, “এর আগে চাকদা নাট্যজনের ঋত্বিক প্রেখ্যাগৃহের চারদিনের বুকিং বাতিল করে দেওয়া হয়, ওরা সংগ্রামী যৌথ মঞ্চে একটি নাটক অভিনয় করেছিল সেদিন বিকেলে, তারপর রাতেই কল্যাণী পুরসভা ওদের বুকিং বাতিল করে। তখনই আমি বলেছিলাম এই ঘটনার পিছনে রাজনৈতিক কারণ আছে। এবার সেই আশঙ্কা যে সত্যি সেটা প্রমাণ হল। এই নাটকের পরিচালক দেবেশ চট্টোপাধ্যায়ের আগে রাজ্যের শাসক দলের সঙ্গে ভালো সম্পর্ক ছিল বলে জানি। আসলে এই সরকার এসব কাজ যত করবে ততোই সরকারের পতনের সময় ত্বরান্বিত হবে, সেটা সরকারের বোঝা উচিত।”

এই ঘটনায় বিজেপি মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য রাজ্য সরকারের সমালোচনা করে বলেছেন, ২০১১ সালে মানুষ ভোটের লাইনে দাঁড়িয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে গণতান্ত্রিক সরকার গঠনের জন্য ভোট দিয়েছিলেন। ক্ষমতায় এসেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বুঝিয়ে দিয়েছেন তিনি কতবড় স্বৈরাচারী প্রশাসন চালাচ্ছেন।”
এদিকে তৃণমূল সাংসদ শান্তনু সেন এই ঘটনার প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে বলেন, “নিশ্চই কোনও সরকারি অনুষ্ঠান আছে, তাই পুরসভা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার কখনও বদলের রাজনীতি করেনি, করে না।”


  • Tags:
❤ Support Us
error: Content is protected !!