Advertisement
  • দে । শ
  • ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২৩

আইএমএফের শর্ত মেটাতে পাক জনগণের ওপর বিশাল করের বোঝা চাপিয়েছে শাহবাজ সরকার

আরম্ভ ওয়েব ডেস্ক
আইএমএফের শর্ত মেটাতে পাক জনগণের ওপর বিশাল করের বোঝা চাপিয়েছে শাহবাজ সরকার

আন্তর্জাতিক অর্থ ভাণ্ডার থেকে বিপুল পরিমাণ ঋণ নিয়েছে পাকিস্তান। আর তাদের শর্ত পূরণ করতে গিয়েই দেশের জনগণের ওপর বিশাল করের বোঝা চাপিয়েছে শাহবাজ শরিফ সরকার। রাজস্ব দপ্তরের পক্ষ থেকে তরফে নোটিশ জারি করে নতুন কর ব্যবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে। আর এই নতুন করে ব্যবস্থায় লিটার পিছু পেট্রলের দাম বেড়েছে ২২.২০ টাকা। এখন পাকিস্তানে এক লিটার পেট্রলের দাম গিয়ে পৌঁছেছে ২৭২ টাকায়।

বুধবার মিনি বাজেট ঘোষণা করেছে পাকিস্তান সরকার। এই মিনি বাজেটে শুধু পেট্রল নয়, নতুন রাজস্ব ব্যবস্থায় সমস্ত নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দামও হুহু করে বেড়ে গিয়েছে। হাই স্পিড ডিজেলের দাম লিটার পিছু ১৭.২০ টাকা বেড়ে হয়েছে ২৮০ টাকা। কেরোসিন তেলেও লিটার পিছু বেড়েছে ১২.৯০ টাকা। বর্তমানে কেরোসিনের দাম হয়েছে ২০২.৭৩ টাকা। ৯.৮০ টাকা বৃদ্ধির পর প্রতি লিটার হালকা ডিজেলের দাম হয়েছে ১৯৬.৬৮ টাকা। সিগারেটসহ অন্যান্য নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসেরও দাম বেড়েছে। আজ সকাল থেকেই নতুন দাম কার্যকর হয়েছে। আর তারপর থেকেই মাথায় হাত আমজনতার।

মিনি বাজেটের মাধ্যমে পাকিস্তান ডেমোক্রেটিক মুভমেন্ট-এর নেতৃত্বাধীন ফেডারেল সরকারের লক্ষ্য বাজেট ঘাটতি কমানো এবং কর সংগ্রহ প্রসারিত করা। ধুঁকতে থাকা অর্থনীতিকে বাঁচাতে আইএমএফের কঠিন শর্ত মেনেই ঋণ নিতে রাজি হয় শাহবাজ শরিফের সরকার। দীর্ঘদিন ধরে আলোচনার পর পাকিস্তানকে ঋণ দিতে রাজি হয় তারা। আইএমএফের শর্ত অনুযায়ী, এক ধাপে ১৮ শতাংশ বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে বাণিজ্য কর। এর ফলে ১১৫ বিলিয়ন টাকা আসবে পাক কোষাগারে, এমনই ধারণা প্রশাসনের। বাকি ৫৫ বিলিয়ন টাকা অন্যান্য ব্যবস্থার মাধ্যমে তৈরি করা হবে।


  • Tags:
❤ Support Us
error: Content is protected !!