Advertisement
  • এই মুহূর্তে দে । শ
  • সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২৩

“নতুন সংসদ ভবনের হাত ধরে নতুন ভারতের ভবিষ্যতের সূচনা হতে চলেছে”, প্রধানমন্ত্রী

আরম্ভ ওয়েব ডেস্ক
“নতুন সংসদ ভবনের হাত ধরে নতুন ভারতের ভবিষ্যতের সূচনা হতে চলেছে”, প্রধানমন্ত্রী

শতাব্দী প্রাচীন সংসদ ভবনের পথ চলা শেষ হল। আজ মঙ্গলবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২৩ থেকে শুরু হল নতুন সংসদ ভবনের যাত্রা। নতুন সংসদ ভবনে গণেশ পুজোর দিন থেকে কাজ শুরু হবে বলে সোমবার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। নতুন সংসদ ভবনের নাম “পার্লামেন্ট হাউস অফ ইন্ডিয়া”। নতুন সংসদ ভবনে প্রধানমন্ত্রী প্রবেশ করবেন হস্তী দ্বার দিয়ে, বাকি সাংসদরা মকর দ্বার দিয়ে। রাজ্যসভার নকশা পদ্মফুলের আদলে, লোকসভার নকশা জাতীয় পাখি ময়ুরের আদলে তৈরি। ৮৮৮ জন লোকসভা কক্ষে এবং ৩৮৪ সাংসদ রাজ্যসভা কক্ষে বসতে পারবেন। স্পিকারের আসনের পাশে থাকবে সোনার “সেঙ্গল”। ৬৪ হাজার মিটার জায়গা নিয়ে তৈরি নতুন সংসদ ভবন। ১০ ডিসেম্বর, ২০২০ সালে নতুন সংসদ ভবনের নির্মাণ কাশ শুরু হয়।

পুরনো সংসদ ভবনের স্মৃতিচারণা করতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, “নতুন সংসদ ভবনের হাত ধরে নতুন ভবিষ্যতের সূচনা হতে চলেছে। তবে এই সংসদ ভবনে লোকসভা ও রাজ্যসভা মিলিয়ে ৪ হাজার আইনবপাশ হয়েছে।” ৩৭০ ধারা, ৩৭৭ ধারা বাতিলের প্রসঙ্গ উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি বললেন, ‘‘মুসলিম মা-বোনেরা বিচার পেয়েছেন এই ভবনে। তিন তালাক রদ করা হয়েছে। রূপান্তরকামীরা ন্যায় পেয়েছেন। ৩৭৭ ধারা রদ করা হয়েছে। ৩৭০ ধারা অবলুপ্ত করা হয়েছে। এমন অনেক কিছু হয়েছে এই ভবনে।’’

প্রধানমন্ত্রী এদিন আত্মনির্ভর ভারত গড়ার আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘‘আত্মনির্ভর ভারতের সংকল্প পূরণ করতে হবে আমাদের।’’ এই কাজে সব সাংসদদের ভূমিকার কথাও প্রধানমন্ত্রী উল্লেখ করেন।

দেশের আর্থিক প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‘ভারত বিশ্বের পঞ্চম অর্থব্যবস্থায় পৌঁছেছে। বিশ্বের তৃতীয় অর্থব্যবস্থায় পরিণত হবে ভারত। তবে এটা অনেকে মানতে চান না।”

দেশের বিজ্ঞানের সাফল্য প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে চন্দ্রযান-৩ এর প্রসঙ্গ টেনে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‘চন্দ্রযান ৩-এর সাফল্যের পর দেশের যুবকদের মধ্যে বিজ্ঞান নিয়ে আগ্রহ বেড়েছে। আমাদের উজ্জ্বল ভবিষ্যত গড়তে হবে।’’

জি-২০-র সাফল্যের প্রসঙ্গও এসেছে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণে। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন,  “যুবশক্তির ওপর আমাদের আস্থা আছে।” দেশের উন্নয়নের প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “রাজনীতির কথা ভেবে পিছিয়ে থাকলে হবে না।” প্রধানমন্ত্রী বললেন, ‘‘ভবিষ্যতের কথা ভেবে আমাদের সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে হবে। দক্ষতা বৃদ্ধিতে আমরা জোর দিচ্ছি।’’

মঙ্গলবার দুপুর ১টা ১৫ মিনিটে নতুন সংসদ ভবনে লোকসভায় প্রথম অধিবেশন শুরু হবে। নতুন ভবনে রাজ্যসভায় প্রথম অধিবেশন শুরু হবে দুপুর ২টো ১৫ মিনিটে।

মঙ্গলবার থেকে নতুন সংসদ ভবনে অধিবেশন শুরু হচ্ছে। গত ২৮ মে নতুন সংসদ ভবনের উদ্বোধন হয়। তার পর সংসদের বাদল অধিবেশন বসেছিল পুরনো ভবনেই। গণেশ চতুর্থীর দিন নতুন সংসদ ভবনের কাজ শুরুর জন্য বেছে নেওয়া হল। সোমবার থেকে সংসদের বিশেষ অধিবেশন শুরু হয়েছে। সোমবার শেষ হয়েছে পুরনো সংসদ ভবনের শেষ দিনের অধিবেশন। শেষ দিনে বক্তৃতা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

নতুন সংসদ ভবনের পথচলা শুরুর আগে মঙ্গলবার পুরনো ভবনে সাংসদদের সঙ্গে ছবি তোলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।এছাড়াও সাংসদরা গ্রুপ ছবি তোলেন এদিন।

ঐতিহাসিক সংসদের পুরনো ভবনে স্বাধীনতা ঘোষণা, অনেক আইন প্রণয়ন, ভালো, মন্দ অনেল সংসদীয় ইতিহাসের সাক্ষী এই পুরনো সংসদ ভবন। শেষ বারের মতো পুরনো সংসদ ভবনে মঙ্গলবার যান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ঐতিহাসিক সেন্ট্রাল হলে বিশেষ অনুষ্ঠান হল। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেম সাংসদেরা।

এরই মধ্যে পুরনো সংসদ ভবনে গ্রুপ ফটো তোলার সময় জ্ঞান হারালেন বিজেপির রাজ্যসভার সাংসদ নরহরি আমিন। সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে উদ্ধার করা হয়। পরে সুস্থ হয়ে এক সঙ্গে ছবিও তোলেন তিনি।

সেন্ট্রাল হলে কংগ্রেসের লোকসভার দলনেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরী বলেন, ‘‘২০৪৭ সালের মধ্যে উন্নত দেশের তকমা অর্জন নির্ভর করছে আমাদের দেশের নাগরিকদের উন্নয়নের উপর।’’

অধীরের বক্তব্যের জবাবে পীযূষ গোয়েল বলেন, “১৯৪৭ র পর এই ভাবনা ভাবলে ২০৪৭ সাল পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হত না।

প্রধানমন্ত্রী সংবিধানের অনুলিপি নিয়ে নতুন সংসদ ভবনে পৌঁছবেন। পুরনো সংসদ ভবনকে সংবিধান ভবন বলে এদিন ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী। পুরনো সংসদ ভবনের সেন্ট্রাল হলে প্রধানমন্ত্রী ছাড়াও বক্তব্য রাখেন লোকসভা ও রাজ্যসভার দলনেতা, লোকসভার বিরোধী লনেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরী, পীযূষ গোয়েল, লোকসভা ও রাজ্যসভার অধ্যক্ষ।


  • Tags:
❤ Support Us
error: Content is protected !!