Advertisement
  • বি। দে । শ
  • মে ২৮, ২০২৪

আর নিষিদ্ধ সংগঠন নয় তালিবানরা, সিদ্ধান্ত মস্কোর

আরম্ভ ওয়েব ডেস্ক
আর নিষিদ্ধ সংগঠন নয় তালিবানরা, সিদ্ধান্ত মস্কোর

আফগানিস্তানের শাসন ক্ষমতায় থাকা তালিবানদের সঙ্গে দূরত্ব আরও কমানোর দিকে অগ্রসর হল রাশিয়া। তালিবানরা ক্ষমতায় ফিরে আসার ৩ বছর পর তাদের নিষিদ্ধ সন্ত্রাসী সংগঠনের তালিকা থেকে বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মস্কো। সোমবার রাশিয়ার রাষ্ট্র পরিচালিত নভোস্তি সংবাদ সংস্থা এখবর জানিয়েছে।

বছরের পর বছর ধরে মস্কো তালিবানদের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপনে বারবার উৎসাহিত হয়েছে। দুই পক্ষের মধ্যে বেশ কয়েকদফা আলোচনা হয়েছে। আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্ত্বেও আফগানিস্তানের সাথে বাণিজ্যিক সম্পর্ক  বাড়িয়েছে রাশিয়া। রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা নভোস্তিকে সে দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ বলেছেন, ‘‌আমরা কাজাখস্তানের মতো একই পদ্ধতি গ্রহণ করছি এবং আমাদের সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর তালিকা থেকে তালিবানকে বাদ দিচ্ছি।’‌ সম্প্রতি কাজাখস্তানও তালিবানকে নিষিদ্ধ সংগঠনের তালিকা থেকে বাদ দিয়েছে।

রাশিয়ার এই পদক্ষেপ আফগানিস্তানের সঙ্গে তাদের কূটনৈতিক সম্পর্ক জোরদার করবে। তালিবানরা ২০২১ সালে মার্কিন–সমর্থিত সরকারের কাছ থেকে ক্ষমতা দখল করে। তারা দেশে ইসলামি আইন চূড়ান্তভাবে প্রয়োগ করেছে, যা মহিলাদের জনজীবন থেকে সম্পূর্ণভাবে বিচ্ছিন্ন করেছে। ল্যাভরভ আরও বলেন, ‘‌আমরা আফগানিস্তানের ব্যাপারে উদাসীন নই। সর্বোপরি মধ্য এশিয়ায় আমাদের মিত্ররাও তালিবানদের ব্যাপারে উদাসীন নয়।’‌
রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, রাশিয়া তার ফ্ল্যাগশিপ সেন্ট পিটার্সবার্গ ইন্টারন্যাশনাল ইকোনমিক ফোরামে তালিবান প্রতিনিধিদেরও আমন্ত্রণ জানিয়েছে। ২০১৮ সালে আফগানিস্তানে মার্কিন বাহিনীর প্রধান দাবি করেছিলেন যে, মস্কো তালিবানদের অস্ত্র সরবরাহ করছে। সেই অভিযোগ মস্কো তখন অস্বীকার করেছিল। উল্লেখ্য, ২০০৩ সাল থেকে রাশিয়ায় তালিবানকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে চিহ্নিত করেছিল। আফগানিস্তানের সাথে রাশিয়ার ইতিহাস অতীত থেকে উত্তেজনায় ভরা। ১৯৮০–এর দশকে সোভিয়েত ইউনিয়ন মুজাহিদিন বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে ক্রেমলিনপন্থী সরকারকে সমর্থন করার জন্য এক দশক ধরে নৃশংস যুদ্ধ চালিয়েছিল।


  • Tags:
❤ Support Us
error: Content is protected !!