Advertisement
  • এই মুহূর্তে দে । শ
  • জুন ৮, ২০২৩

পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে ইডির হাজিরায় যাব না। ক্ষমতা থাকলে গ্রেফতার করুক, কালীগঞ্জ থেকে হুঙ্কার অভিষেকের

আরম্ভ ওয়েব ডেস্ক
পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে ইডির হাজিরায় যাব না। ক্ষমতা থাকলে গ্রেফতার করুক, কালীগঞ্জ থেকে হুঙ্কার অভিষেকের

কালীগঞ্জে সাংবাদিক সম্মেলন করে তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় রীতিমতো হুঙ্কার দিয়ে জানিয়ে দিলেন, “মঙ্গলবারে ইডির ডাকে সিজিও কমপ্লেক্সে আমি যাবো না। আপনারা যদি ভাবেন যখন ডাকবেন আমি যাব, তা হবে না। আমি যাব না। ক্ষমতা থাকলে গ্রেফতার করুণ। আমার হাতে ইডির নোটিশ আসেনি। ওরা কি তথ্য চাইছে জানি না। যা তথ্য চাইবে সব তথ্য আমি পাঠিয়ে দেব। ৮ জুলাইয়ের আগে যাব না। আমি বলব আমায় চিঠি দিয়ে হেনস্থা না করে ক্ষমতা থাকলে গ্রেফতার করুণ। প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর চেয়ারকে সম্মান দিয়ে বলছি হাতে প্রমাণ থাকলে গ্রেফতার করুক। আমার জেল হবে। তারপর জামিন পাব। বেরিয়ে এসে আবার রাজনীতি করব। রাজনৈতিক ভাবে আপনাদের কবর দেব। আমায় দোষী প্রমাণ করতে পারলে আমি ফাঁসিতে ঝুলে যাব।”

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় রাত ৯টার কিছু পরে কালীগঞ্জে সাংবাদিক সম্মেলন করে বলেন, “আমি নোটিশ হাতে পাইনি। আমি কলকাতা থেকে দূরে আছি। ৪টে ৩০ মিনিটে আমার স্ত্রীকে ছেড়েছে আমায় সাড়ে ৫টায় নোটিশ দিয়েছে। আমায় আগে সিবিআই যখন ডেকেছে তখন গিয়েছি, আমি তখন বলে আসি আমাদের যাত্রা চলছে। কর্মসূচির পর ডাকুন। সেটা না শুনে ডাকল। সিবিআই, ইডির অফিসার ওপর আমার কোনও রাগ নেই। এরা দায়বদ্ধতার থেকে এসব করে। তৃণমূলের নব জোয়ার যখন মধ্য গগনে, তখন আমাকে,আমার স্ত্রীকে ডাকছে, আমার ৯ বছরের মেয়েকে, ৩ বছরের ছেলেকে হেনস্থা করছে। আমি তো বলেছি আমার বিরুদ্ধে প্রমাণ থাকলে আমি নিজেই ফাঁসিতে ঝুলে যাব। আমার স্ত্রীকে দুবাই যেতে দেয়নি। বিমান বন্দরে তাঁকে ইডি নোটিশ দিয়েছে।”

অভিষেক এদিন বলেন, “আজই ইডির নোটিশ দেওয়া কোনও কাকতালীয় ঘটনা  নয়, আজ পঞ্চায়েত নির্বাচনের দিন ঘোষণা হয়েছে। আমার কাছে নোটিশ দিল। পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে আমার আসা সম্ভব নয়। ৮ জুলাইয়ের পর আমায় যেদিন ডাকবে আমি যাব। এখন আমি ৯, ১০ ঘণ্টা এভাবে সময় নষ্ট করতে পারব না। ১৬ তারিখ পর্যন্ত ১০,১২ ঘণ্টা সময় নষ্ট আমি করতে পারি না। আরও ৮,১০ দিন আমি সময় নষ্ট করতে পারব না, আমার জনসংযোগ যাত্রা আছে। বিজেপি চাইছে আমার এই যাত্রা, মানুষের সঙ্গে সংযোগ নষ্ট করতে। আমায় এর আগেও ডেকেছে। সবকিছু ওদের এই ১০,১২ দিনের মধ্যেই করতে হবে? এদের ডাবল ইঞ্জিন হল একটা ইডি একটা সিবিআই। আমায় ১৫ তারিখ পর্যন্ত সময় দিন। ১৫ তারিখ হচ্ছে মমোনয়ন জমা দেওয়ার শেষ দিন। আপনারা আমার সঙ্গে লড়াই করে না পেরে আমায়, আমার স্ত্রীকে, আমার ছেলে,মেয়েকে হেনস্থা করছে। ৮ তারিখ তো ভোট। জনতার দরবারে যাচাই হবে মানুষ কাকে চায়৷”

অভিষেক বলেন, “যারা সব থেকে বড় সুবিধাভোগী সে ঘুরে বেড়াচ্ছে। আমি সিবিআইকে কি চিঠি দিচ্ছি সেটা শুভেন্দু অধিকারীর হাতে কি করে যাচ্ছে? আমি এটা নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে যাব।”

এদিন ইডি,সিবিআইর গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “রবীন্দ্রনাথের নোবেল চুরির তদন্ত, জ্ঞানেশ্বরী, সারদা,নারদা তদন্তের কি হল? আমার ইডি,সিবিআইর কোনও আধিকারিকের উপর রাগ, অসন্তোষ নেই। নরেন্দ্র মোদিকে বলছি, আপনার বয়স ৭২,আমার বয়স ৩৬। ৯ বছরে কি করেছেন আসুন,বলুন আর আমরা বলি ১২ বছরে আমরা কি করেছি।”

এদিন অভিষেক বিরোধীদের প্রতি বলেন, “শুভেন্দু অধিকারী ও অন্য বিরোধীদের বলছি, প্রার্থী দিতে না পারলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বলুন, আমায় বলুন, আমি গিয়ে আপনাদের মনোনয়নের ব্যবস্থা করে দেব। আপনারা হতাশাগ্রস্ত না হয়ে মানুষের দরবারে লড়াই করুন। এরা বাংলায় ৭০টা ৭৭টা আসন জিতে বাংলার মানুষের টাকা আটকাচ্ছে। সময় ঘনিয়ে আসছে। এরা ভাবছে দেশটা তাদের।”

 


  • Tags:
❤ Support Us
error: Content is protected !!