Advertisement
  • দে । শ প্রচ্ছদ রচনা
  • অক্টোবর ৫, ২০২৩

বকেয়া আদায়ে তৃণমূলের “রাজভবন অভিযান”, অভিষেকের নেতৃত্বে গন্তব্যে পৌঁছল মিছিল, তবে রাজভবনে নেই রাজ্যপাল!

আরম্ভ ওয়েব ডেস্ক
বকেয়া আদায়ে তৃণমূলের “রাজভবন অভিযান”, অভিষেকের নেতৃত্বে গন্তব্যে পৌঁছল মিছিল, তবে রাজভবনে নেই রাজ্যপাল!

দিল্লিতে দাবি আদায় হয়নি। কেউ শোনেনি তাঁর,তাঁদের কথা। তাই এবার কলকাতায় দিল্লির প্রতিনিধি রাজ্যপাল সি ভি আনন্দ বোসের ভবনে দাবি আদায়ের জন্য দলবল নিয়ে হাজির হলেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।  তবে এমন দ৭নে তাঁরা রাজভবন অভিযানে এলেন যেদিন রাজ্যপাল নিজেই রাজভবনে নেই। আর এই রাজভবন অভিযানকে ঘিরে ব্যাপক যানজটে নাজেহাল কলকাতার প্রাণকেন্দ্র।

বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে তিনটে বাজতেই মোহরকুঞ্জ থেকে রাজভবনের উদ্দেশে রওনা দেয় জোড়-ফুলের মিছিল। সাড়ে তিন কিলোমিটার রাস্তা প্রায় ২ ঘন্টার পর সেই মিছিল পৌঁছয় রাজভবন চত্বরে। তার আগে থেকেই সেখানে ভিড় জমিয়েছিলেন তৃণমূল কর্মী, সমর্থকরা।

বকেয়া আদায়ে রাজধানীতে ধর্না কর্মসূচিতে অভিষেকের রাজনৈতিক লাভ হয়তো হয়েছে কিন্তু জবকার্ড হোল্ডারদের ওই আন্দোলনে কোনও লাভ হয়নি। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কৃষি মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় সহ তৃণণূলের সাংসদ, মন্ত্রী ও বঞ্চিতদের সঙ্গে দেখা করবেন বলেও শেষ পর্যন্ত দেখা করেননি, মন্ত্রীর শর্ত ছিল ৫ জনের সঙ্গে কথা বলবেন। তাতে সম্মত হননি অভিষেক, আর তাই দাবি আদায়ের যে দাবি তাও সঠিক জায়গায় পেশ করা যায়নি। এটা মত্রীর জেদ না অভিষেকের জেদ, সেটা নিয়ে বিস্তর জল্পনা চলতেই পারে কিন্তু আদোলনের মূল উদ্দেশ্য সফল যে হয়নি তা বলাই যায়। এই বিষয় নিয়ে চাপানউতোর এখনও জারি আছে। তৃণমূলের অভিয়োগ করে বলছে, বকেয়ার বদলে জুটেছে পুলিশের নীপীড়ন। আর দিল্লির নীপীড়নের বদলা হিসাবে এদিন রাজভবন অভিয়ানের ডাক দিয়েছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর দাবি, রাজ্যপালের হাতে তুলে দেওয়া হবে ৫০ লক্ষ বঞ্চিত মানুষের বকেয়া অর্থের দাবি।
সেটাও হল না। কারণ রাজ্যপাল কলকাতায় এদিন ছিলেনই না।

বৃহস্পতিবার রাজভবনে  রাজ্যপাল না থাকায় এদিনের তৃণমূলের দাবি আদায়ও হল না, দেওয়া হল না রাজ্যপাল সি ভি আনন্দ বোসের হাতে ৫০ লক্ষ চিঠির বাক্স। রাজ্যপাল উত্তরবঙ্গের বন্যা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে বৃহস্পতিবার সকালেই সেখানে পৌঁছেছেন। এবার তাহলে কী হবে? শাসকদলের দাবি, রাজ্যপালের কাছে সময় চেয়ে চিঠি দেওয়া হয়েছিল। জবাবে রাজ্যপাল জানিয়েছেন, উত্তরবঙ্গে এসে দেখা করতে পারেন তৃণমূলের প্রতিনিধি দল। এতেও অসন্তুষ্ট রাজ্যের শাসকদল। তারা বলছে, রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধানের এমন মন্তব্য দেখে জমিদারি মনোভাব মনে হচ্ছে। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন মিছিলে কেন্দ্র বিরোধী স্লোগান দেন, তাতে গলা মেলান তাঁর দলের নেতকর্মীরা। দিল্লির মসনদ থেকে নরেন্দ্র মোদিকে টেনে নামাবার ডাক দেন তৃনমূলের সেকেন্ড-ইন-কমান্ড।


  • Tags:
❤ Support Us
error: Content is protected !!