Advertisement
  • বৈষয়িক
  • জুলাই ২৫, ২০২২

বেঙ্গল ক্লাবে ভারত-বাংলাদেশ মৈত্রী কাহিনী

বাহাউদ্দিন নাসিমকে ঘিরে বেঙ্গল ক্লাবে জমজমাট আড্ডা

আরম্ভ ওয়েব ডেস্ক
বেঙ্গল ক্লাবে ভারত-বাংলাদেশ মৈত্রী কাহিনী

রবিবার, বেঙ্গল ক্লাবের জমজমাট সন্ধ্যা। দেওয়ালে রাজা রামমোহন রায়, মহামতি বিদ্যাসাগরের প্রতিকৃতিকে সাক্ষী রেখে, ভারত বাংলাদেশের ৫০ বছর পূর্তি উদযাপনে জড়ো হয়েছিলেন কলকাতার বহু বিশিষ্ট নাগরিক। সভার প্রধান আকর্ষণ, বাংলাদেশ আওয়ামী লিগের যুগ্ম সাধারম সম্পাদক এ.এফ.এম বাহাউদ্দিন নাসিম।দীর্ঘাঙ্গ, সুপুরুষ। আলোর অধিক হয়ে যেন দ্যুতি ছড়াচ্ছে তাঁর স্মিত হাসি, গায়ের পোশাক আর সুচিন্তিত ভাষণ। তার সঙ্গে ডানদিকে বাঁ দিকে, দাঁড়িয়ে আছেন বাংলাদেশ হাইকমিশনের উপদূত আন্দালিব ইলিয়াস, প্রেস সচিব রঞ্জন সেন, সাংবাদিক দেবদীপ পুরোহিত এবং ভারত-বাংলাদেশ মৈত্রী সমিতির প্রাণ-পুরুষ শিশির বাজোরিয়া সহ বহু পরিচিত মুখ।বাহাউদ্দিন নাসিম বললেন, আমাদের দুদেশের সম্পর্ক আরও মজবুত আরও উজ্জ্বল হয়ে উঠবে। দক্ষিণ এশিয়ায়, এরকম দুটি দেশের সহজ সুন্দর অবস্থান বিরল। ভারত সবসময় বাংলাদেশের পাশে ছিল, পাশে থাকবে। সম্পর্কের সোনালী অধ্যায়ে আমরা প্রবেশ করেছি। পদ্মাসেতু নির্মাণের প্রস্তুতি পর্বে, যখন বিদেশি সংস্থা সরে গেল, তখন ভারতের প্রধানমন্ত্রী আমাদের প্রধানমন্ত্রীকে ফোন করে বলেছিলেন, আমরা আপনাদের সহায়তা করব। সেতু উদ্বোধনের আগের দিনটিতে তিনি বাংলাদেশকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। বাংলাদেশের সীমান্ত-ছোঁওয়া আরও কয়েকটি দেশ আছে, তাঁদের কারও সঙ্গে এমন হৃদয়স্পর্শী আর পরস্পর নির্ভর সম্পর্ক তৈরি হয়নি।

এদিনের সভার আয়োজক শিশির বাজোরিয়া তাঁর সংক্ষিপ্ত ভাষণের পর মাইক্রোফোন এগিয়ে দিলেন দিকদর্শী সাংবাদিক দেবদীপ পুরোহিতকে। বাংলাদেশের প্রতি তাঁর ব্যক্তিগত দুর্বলতা অতিক্রম করে, বাংলাদেশ সম্পর্কে, ওখানকার উন্নয়ণ সম্পর্কে, সামাজিক অগ্রগতি সম্পর্কে খানিকটা আবেগাপ্লুত ভাষায় চমৎকার ছবি তুলে ধরলেন দেবদূত। ডেপুটি হাইকমিশনের উপদূত আন্দালিব ইলিয়াস গুণী মানুষ। গুণী পরিবারের সন্তান। শব্দ-চয়ন সুনির্বাচিত। বললেন, ভারত-বাংলাদেশের বন্ধুত্ব অনিঃশেষ হয়ে থাকবে।

সব মিলিয়ে, নতুন শপথ আর স্মূতি উদযাপনের অঙ্গীকার ছড়িয়ে দিল রবিবারের সন্ধ্যা।


  • Tags:

Read by: 74 views

❤ Support Us
Advertisement
Advertisement
শিবভোলার দেশ শিবখোলা স | ফ | র | না | মা

শিবভোলার দেশ শিবখোলা

শিবখোলা পৌঁছলে শিলিগুড়ির অত কাছের কোন জায়গা বলে মনে হয় না।যেন অন্তবিহীন দূরত্ব পেরিয়ে একান্ত রেহাই পাবার পরিসর মিলে গেছে।

সৌরেনি আর তার সৌন্দর্যের সই টিংলিং চূড়া স | ফ | র | না | মা

সৌরেনি আর তার সৌন্দর্যের সই টিংলিং চূড়া

সৌরেনির উঁচু শিখর থেকে এক দিকে কার্শিয়াং আর উত্তরবঙ্গের সমতল দেখা যায়। অন্য প্রান্তে মাথা তুলে থাকে নেপালের শৈলমালা, বিশেষ করে অন্তুদারার পরিচিত চূড়া দেখা যায়।

মিরিক,পাইনের লিরিকাল সুমেন্দু সফরনামা
error: Content is protected !!