Advertisement
  • দে । শ প্রচ্ছদ রচনা
  • সেপ্টেম্বর ১, ২০২৩

বর্ণভিত্তিক আদমশুমারি নিয়ে বিভক্ত “ইন্ডিয়া”, থমকে গেল রাজনৈতিক প্রস্তাব

আরম্ভ ওয়েব ডেস্ক
বর্ণভিত্তিক আদমশুমারি নিয়ে বিভক্ত “ইন্ডিয়া”, থমকে গেল রাজনৈতিক প্রস্তাব

মুম্বইয়ে “ইন্ডিয়া” জোটের তৃতীয় বৈঠকে পূর্ণ-সৌহার্দ্যের মধ্যেও বৈপরীত্যের সুর ধরা পড়ল। এর ফলে মুম্বাই-এর মিটিংয়ে রাজনৈতিক প্রস্তাব গৃহীত হওয়ার সময়, বর্ণ শুমারির দাবির অন্তর্ভুক্তির বিষয়ে মতবিরোধের ফলে তা খারিজ হয়ে গেল।

জনতা দল (ইউনাইটেড), সমাজবাদী পার্টি এবং রাষ্ট্রীয় জনতা দল বর্ণ শুমারির দাবিতে চাপ দিলেও, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী এবং তৃণমূল কংগ্রেসের প্রধান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে এর বিরুদ্ধে আওয়াজ ওঠে। জুলাইয়ে জোটের দ্বিতীয় বৈঠকের পর ‘সামুহিক সংকল্প’ বা যৌথ প্রস্তাব বিশেষভাবে জাতিশুমারি বাস্তবায়নের আহ্বান জানিয়েছিল “ইন্ডিয়া”। তখন “ইন্ডিয়া” জোটের দগুলি তাদের প্রস্তাবে এক সুরে বলেছিল, “আমরা সংখ্যালঘুদের বিরুদ্ধে তৈরি করা ঘৃণা ও সহিংসতাকে পরাস্ত করতে একত্রিত হয়েছি; নারী, দলিত, আদিবাসী এবং কাশ্মীরি পণ্ডিতদের বিরুদ্ধে ক্রমবর্ধমান অপরাধ বন্ধ করতে; সমস্ত সামাজিক, শিক্ষাগত এবং অর্থনৈতিকভাবে পিছিয়ে থাকা সম্প্রদায়ের জন্য ন্যায্য শুনানির দাবিতে; এটাই আমাদের প্রথম পদক্ষেপ। জোটের দলগুলি তখন বলেছিল, “বর্ণ আদমশুমারি বাস্তবায়ন করুন।” এর ফলে শুক্রবার বৈঠকে থমকে গেল “ইন্ডিয়া”-র রাজনৈতিক রেজোলিউশন।

এদিকে মুম্বইতে “ইন্ডিয়া” জোটের তৃতীয় মেগা বৈঠক শেষে সাংবাদিক বৈঠক থেকে শুক্রবার আগের দুটো বৈঠকের চাইতে আরও দৃঢ়ভাবে কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধি “ইন্ডিয়া” জোটের জয় নিশ্চিত ঘোষণা করলেন। রাহুল গান্ধি এদিন বলেন, “আমাদের ইন্ডিয়া জোটের শরিকদের মধ্যে আরও বেশি সমন্বয় বজায় রেখে চলতে হবে। কোথাও যেন কোনও স্থিস্থাপকতার অভাব না হয়। ইন্ডিয়া জোটে ৬০% দেশবাসীর প্রতিনিধিত্ব রয়েছে। ইটা বজায় থাকলে এমনিতেই এনডিএ জোটকে ইন্ডিয়া পরাজিত করতে পারবে।” রাহুল গান্ধি এদিনও মোদি-আদানি সম্পর্ক নিয়ে প্রশ্ন তুলে বলেন, “কী আড়াল করছেন মোদি ?”

তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শুক্রবারের বৈঠকে প্রস্তাব দিয়েছেন, “আগামী ২ অক্টোবর গান্ধীজির জন্মবার্ষিকীতে দিল্লির রাজঘাট থেকে ইন্ডিয়া-র মূল কর্মসূচি হিসেবে পাঁচ-ছ’টি বিষয় ঘোষণা করে দেওয়া হোক। এই পাঁচ-ছ’টি বিষয়ই বিরোধীদের ইন্ডিয়া-র ইস্তাহারের ভিত্তি হতে পারে। মমতা বলেছেন, জোটের সবাই মিলে রাজঘাট থেকে এই ঘোষণা করা যেতে পারে। দ্রুত সিদ্ধান্ত নিয়ে বিজেপির বিরুদ্ধে আন্দোলনে নেমে পড়তে হবে।”

এদিকে কংগ্রেস সভাপতি মল্লিকার্জুন খাড়গে বলেন, “গর্বের টাকা মেরে কিছু কাছের মানুষ, ব্যবসায়ীর হাতে সেই টাকা তুলে দিচ্ছে নরেন্দ্র মোদি। তিনি মুখে বলছেন গরিব দরদী, আসলে তিনি হলেন গরিবের বিরুদ্ধে। ১০০ টাকা গ্যাসের দাম বাড়িয়ে ২ টাকা দাম কমাচ্ছেন।” পাশাপাশি খাড়গে বলেন, “এবার বিরোধীদের ওপর কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থার অভিযান আরও বাড়বে।”

লালু প্রাসাদ যাদব এদিনের বৈঠক শেষে সাংবাদিক সম্মেলনে বলেন, “সাংবাদিক বন্ধুদের চেন দিয়ে বেঁধে রেখেছে মোদি সরকার। ইন্ডিয়া এসে তাদের বাঁধন থেকে মুক্ত করবে।”


  • Tags:
❤ Support Us
error: Content is protected !!