Advertisement
  • Uncategorized এই মুহূর্তে ন | গ | র | কা | হ | ন
  • ডিসেম্বর ২৬, ২০২৩

যাদবপুরের সমাবর্তন অবৈধ, কলকাতা হাইকোর্টে মামলা প্রস্তুতি রাজ্যপালের

আরম্ভ ওয়েব ডেস্ক
যাদবপুরের সমাবর্তন অবৈধ, কলকাতা হাইকোর্টে মামলা প্রস্তুতি রাজ্যপালের

পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল সি.ভি. আনন্দ বোস ২৪ ডিসেম্বর যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে “অননুমোদিত সমাবর্তনের” বিরুদ্ধে কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হতে চলেছেন বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে।

রাজ্যপাল উপাচার্য বুদ্ধদেব সাউকে বরখাস্ত করা সত্ত্বেও এবং প্রো-ভাইস-চ্যান্সেলর নিজেই উপাচার্যের ভূমিকা গ্রহণ করেন এবং সমাবর্তন অনুষ্ঠিত হয়। নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গিয়েছে এই বিষয়ে হাই কোর্টের দ্বারস্থ হওয়ার জন্য রাজ্যপাল সি ভি আনন্দ বোস আইনি পরামর্শ নিচ্ছেন। যদিও আচার্য ও উপাচার্য সংক্রান্ত রাজ্যের এই অচলাবস্থা নিয়ে সুপ্রিম করতে মামলা চলছে। শীর্ষ আদালত এই বিষয়টি নিয়ে রাজ্য-রাজ্যপাল আলোচনা করে জট খোলার পরামর্শ দিয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সম্প্রতি রাজভবনে গিয়ে এই বিষয় নিয়ে রাজ্যপালের সঙ্গে বৈঠক করে সংবাদ মাধ্যমকে বলেছিলেন, আলোচনা হয়েছে, আশা করছি, সমস্যা আলোচনায় মিটে যাবে। তবে এরই মধ্যে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তনের ঠিক আগের দিন সন্ধ্যায় উপাচার্য বুদ্ধদেব সাউকে অপসারিত করেন রাজ্যপাল। সমাবর্তনের অনুমতিও দেননি তিনি। তবে রাজ্যপালের নির্দেশ উপেক্ষা করেই, পরেরদিনের সমাবর্তন অনুষ্ঠানের মঞ্চে ছিলেন বুদ্ধদেব সাউ।সফল ছাত্র ছাত্রীদের সার্টিফিকেটে সইও করেন তিনি ।

রবিবার সমাবর্তন শেষে ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় আদালতের সুপারিশ অনুযায়ী তিনি কাজ করেছেন। এদিকে রাজভবনের কর্মকর্তারা বিশ্ববিদ্যালয় আদালতের বৈঠকের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন, আচার্য উপস্থিত ছিলেন না এবং উপাচার্যের কোনও অধিকার নেই সেই অবস্থায় সমাবর্তন করার, কারণ তাঁকে আগেই বরখাস্ত করেছেন রাজ্যপাল তথা বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য।তাদের আরও বক্তব্য, স্বশাসিত বিশ্ববিদ্যালয়ে, সুপ্রিম কোর্টের রায় অনুসারে সমাবর্তন অনুষ্ঠান করার বিষয়ে রাজ্য সরকারের কোনও ভূমিকা নেই।সরকার আচার্যর কর্তৃত্বকে অগ্রাহ্য করে সমাবর্তন অনুষ্ঠানের অনুমোদন দিয়েছে।

এপ্রসঙ্গে আইনি বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আইনি ব্যবস্থা রাজ্যপাল নিতে পারেন উপাচার্যের বিরুদ্ধে। কারণ তিনি ২৩ ডিসেম্বর ভারপ্রাপ্ত উপাচার্যকে অপসারণের আদেশ জারি করেছিলেন।

রাজ্যের হাতিয়ার সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ। রাজ্যের নির্দেশেই শেষ পর্যন্ত রাজ্যপালের বরখাস্তের নির্দেশ অগ্রাহ্য করে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তনে উপস্থিত যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের বরখাস্ত হওয়া উপাচার্য বুদ্ধদেব সাউ। রাজ্য সরকারের তরফে বুদ্ধদেব সাউকে চিঠি দিয়ে জানান হয়েছে, বিষয়টি নিয়ে যেহেতু সুপ্রিম কোর্টে মামলা চলছে তাই আচার্যর নির্দেশানুসারে উপাচার্যের বরখাস্ত কার্যকর নয়।

সমাবর্তন যাতে হয়, সে জন্য উপাচার্যকে বিশেষ ক্ষমতা দেয় রাজ্য শিক্ষা দফতর। শিক্ষা দফতরের বিজ্ঞপ্তিতে জানান হয়, রবিবারের জন্যই এই ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে। সেখানে আরও জানানো হয়। ২০২৩ সালের ১৭ অগস্ট বুদ্ধদেবকে উপাচার্য পদে বসানো হয়েছিল। উপাচার্যের কর্তব্য পালনের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। ২৩ ডিসেম্বর, শনিবার আচমকা সেই ক্ষমতা কেড়ে নেওয়া হয়। অথচ সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী, রাজ্যপাল তথা বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য একক ভাবে এ ধরনের কোনও সিদ্ধান্ত নিতে পারেন না। তার পরেই ২৪ ডিসেম্বর সমাবর্তন করানোর জন্য রাজ্যের শিক্ষা দফতরের তরফে বিশেষ ক্ষমতা দেওয়া হয় বুদ্ধদেব সাউকে।

 


  • Tags:

Read by:

❤ Support Us
Advertisement
homepage block Mainul Hassan and Laxman Seth
Advertisement
homepage block Mainul Hassan and Laxman Seth
Advertisement
শিবভোলার দেশ শিবখোলা স | ফ | র | না | মা

শিবভোলার দেশ শিবখোলা

শিবখোলা পৌঁছলে শিলিগুড়ির অত কাছের কোন জায়গা বলে মনে হয় না।যেন অন্তবিহীন দূরত্ব পেরিয়ে একান্ত রেহাই পাবার পরিসর মিলে গেছে।

সৌরেনি আর তার সৌন্দর্যের সই টিংলিং চূড়া স | ফ | র | না | মা

সৌরেনি আর তার সৌন্দর্যের সই টিংলিং চূড়া

সৌরেনির উঁচু শিখর থেকে এক দিকে কার্শিয়াং আর উত্তরবঙ্গের সমতল দেখা যায়। অন্য প্রান্তে মাথা তুলে থাকে নেপালের শৈলমালা, বিশেষ করে অন্তুদারার পরিচিত চূড়া দেখা যায়।

মিরিক,পাইনের লিরিকাল সুমেন্দু সফরনামা
error: Content is protected !!